BIGtheme.net http://bigtheme.net/ecommerce/opencart OpenCart Templates
Monday , January 23 2017
Home / অন্যান্য / মাত্র একটি হেয়ার প্যাকে হয়ে উঠুন কেশবতী!
Loading...

মাত্র একটি হেয়ার প্যাকে হয়ে উঠুন কেশবতী!

এক গোছা লম্বা চুল কে না চায় বলুন। কিন্তু চাইলে কি সব পাওয়া যায়?আপনারা বলবেন না,আমি বলবো হ্যাঁ।জি হ্যাঁ,চাওয়ার সাথে সাথে যদি চেষ্টা থাকে তবে সব চাওয়াই পূর্ণ হয়।  লম্বা চুলের আশায় সবাই কতো কিছু না করে।কতো রকম হেয়ার প্যাক ব্যবহার করে। চুল সিল্কি করার প্যাক,চুল উজ্বল করার প্যাক,বড় করার প্যাক,ঘনো করার প্যাক,কালো করার প্যাক,ঝরে না পড়ার প্যাক,খুশকি দূর করার প্যাক।

উপস, ভাবলেই মাথা ঘুরে যায়। এতো প্যাক কি মনে রাখা সম্ভব নাকি নিয়ম করে ব্যবহার করা সম্ভব। তারপর ভুল হয়ে গেলে তো লাভের বদলে চুলের ক্ষতি হয়ে বারটার জায়গায় তেরটার কাটায় ঝুলে যাবে। কিন্তু তাই বলে কি সুন্দর চুল হবে না। এমনটা তো হতেই পরে না।

সুন্দর ত্বকের সাথে মিলিয়ে সুন্দর চুল চায় চায়।যদি সমস্যার সমাধান একটি প্যাকে হয়ে যায় তবে কেমন হবে বলুত তো?অবাক হচ্ছেন?অবাক হওয়ার কিচ্ছু নেই।এই প্যাক চুলের সব সমস্যার সমাধান করে চুলকে করবে লম্বা,কলো,ঘনো,উজ্বল,সিল্কি ও খুশকি মুক্ত।তবে দেখে নিন প্যাক ও ব্যবহারের নিয়ম।

যা যা লাগবে:

* ডিম—১ টি * মধু—১ চা চামচ * লেবুর রস—১ চা চামচ * মেহেদী পাতার রস—২ চা চামচ * আমলকির রস—২ চা চামচ * অলিভ অয়েল—১ চা চামচ * ব্রামভিলতার রস—১ চা চামচ * দুধ—১ চা চামচ * অ্যালোভেরার রস—২ চা চামচ * পেয়াজের রস—২ চা চামচ।

যে ভাবে ব্যবহার করবেন:

১।এক এক করে মেহেদী,আমলকি, পেয়াজ,ব্রামভিলতা,অ্যালোভেরা বেটে নিন।সব উপকরণ আলাদা করে বাটবেন।পানি ব্যবহার করবেন না।

২।একটি পাত্রে ডিম ভেঙ্গে ফেটিয়ে নিন।এর মধ্যে আগে থেকে বেটে রাখা মেহেদী,আমলকি,ব্রামভিলতা,পেয়াজ, অ্যালোভেরা এর রস দিন।ভাল করে মিক্স করুন। এবার দুধ,মধু,লেবুর রস,অলিভ অয়েল দিন। সব উপকরন মিশিয়ে মাথার ত্বকে ও চুলে ভাল করে লাগান।

৩।মাথায় একটা শ্যাওয়ার ক্যাপ বা স্কার্ফ জড়িয়ে রাখুন। ৫-৬ ঘন্টা রাখুন।সম্ভব হলে রাতে লাগিয়ে রাখুন। সারা রাত চুল পুষ্টি গুণ পাবে। এবার শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন।

আরও পড়ুন   ভিডিও গেম থেকে শিক্ষা নেবে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা

উপকারীতা:

১।ডিম: ডিম চুলে প্রোটিন যোগায়। এটি চুলের গোড়া মজবুত করে,চুল উজ্বল করে,চুল সিল্কি করে। ডিম কে চুলের খাদ্য বলা যায়।

২।মধু: এটি চুলের ময়লা পরিষ্কার করতে উপকারি। চুলের ত্বকে কোন জীবানু থাকলে বা ফুসকুড়ির সমস্যা থাকলে সেটা নিরাময় করে।

৩।লেবুর রস: এটি চুলের খুশকি দূর করে। খুশকি সারাতে লেবুর মতো কার্যকরি উপকারণ খুব কমই আছে। তাছাড়া এটি চুল উজ্বল করে।

৪।মেহেদী পাতা: এটি চুলের অকালপক্কতা দূর করবে। চুল পড়া বন্ধ করবে। চুল উজ্বল করবে,চুল কালো করবে।

৫।আমলকির রস: চুলের যত্নে আমলকরির রস সব থেকে বেশি উপকারী। কাঁচা বা শুকনা,সব রকমের আমলকি চুলে ব্যবহার করা যায়। এটি চুলের গোড়া শক্ত করে,চুল লম্বা করে,চুল কালো করে। চুলের গোড়ায় প্রচুর পরিমাণে ভিটামিত সি যোগায় যা চুলের পুষ্টি ও খাদ্য হিসাবে কাজ করে।

৬।অলিভ অয়েল: সবাই জানে চুলের জন্য তেলের অনেক প্রয়োজন। কিন্তু সেটা যেমন তেমন তেল হলে তো চলবে না। তাই চুলের সৌন্দর্য্য ধরে রাখতে ব্যবহার করতে হবে অলিভ অয়েল।

৭।ব্রামভিলতা: চুল কালো করে। এটি চুলের বৃদ্ধি ত্বরান্বিত করে।

৮।দুধ: দুধ চুল নরম ও কোমল করে। চুলে জট বাধতে দেয় না। চুল করে ঝরঝরে উজ্বল।

৯।অ্যালোভেরা: চুল পড়া বন্ধ করে।নতুন চুল গজাতে সাহায্য করে। এটিও চুল কোমল করে। চুলের গোড়ায় ঘাঁ বা অন্য জীবানুর আগ্রমণ বিনষ্ট করে।

১০।পেয়াজের রস: এটি চুল পড়া বন্ধ করে। চুল লম্বা করে। চুল দ্রুত লম্বা করতে পেয়াজের রস সব থেকে কার্যকরি প্রাকৃতিক উপাদান। মাথায় উকুনের সমস্যা থাকলে সেটাও দূর করতে পেয়াজের রস কার্যকরি।

Loading...

Leave a Reply